বাঙ্গালী
Friday 6th of August 2021
360
0
نفر 0
0% این مطلب را پسندیده اند

শিয়া নারী ও শিশুদেরকে হত্যা করে ত্রাস সৃষ্টি করুন!

আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা আবনার রিপোর্ট : সৌদি আরবের এক আলেম ইরাকে তত্পর সন্ত্রাসী চক্র আলকায়েদা সদস্যদের উদ্দেশ্যে এ আহবান জানিয়েছেন যে, ইরাকের শিয়া জনগণের নারী শিয়া নারী ও শিশুদেরকে হত্যা করে ত্রাস সৃষ্টি করুন!

রিয়াদের ‘ইমাম মুহাম্মাদ বিন সৌদ’ নামক শরিয়ত শিক্ষা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সামাজিক ওয়েব সাইটে ইরাকের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত আলকায়েদা জঙ্গীদেরকে ‘মুজাহিদ’ আখ্যায়িত করে বলেছেন : যদি মুজাহিদরা (আলকায়েদা জঙ্গীরা) ইরাকে হত্যা ও চাপ বৃদ্ধি করে এবং নারী ও শিশুদেরকে আটকে রাখে তবে রাফেজীদের [সকল শিয়া ফির্কা] মনে ত্রাসের সৃষ্টি করতে পারবে।

সৌদি আরবের এ ধর্ম প্রচারকের এহেন মন্তব্যের ব্যাপক সমালোচনা করেছেন সৌদি আরবের বিভিন্ন দৈনিকের কলামিস্ট ও লেখক সমাজ।।

দৈনিক মদিনার কলামিস্ট এ সম্পর্কে বলেছেন : আল্লাহকে সাক্ষী রাখছি, যারা সবচেয়ে বেশী উপহাসের পাত্র হয় এবং ইসলামের অবমাননার কারণ হয় তারা ইহুদী, খ্রিষ্টান বা মজুসিরা (অগ্নিউপাসক) নয় বরং এ ধরণের উগ্রতাবাদীরা (সায়াদ আল-দুরাইহিম) যারা হত্যা ও রক্তপাতের প্রতি আহবান জানায়।

সৌদি দৈনিক উকাজের কলামিস্ট ‘আব্দুল্লাহ বিন বাখিত’ বলেছেন : ‘যখন এ ধরণের ব্যক্তি কোনরূপ জবাবদিহিতা ও অভিযুক্ত হওয়া ছাড়াই পার পেয়ে যায় তখন আশ্চার্য হওয়ার কিছু নেই যে, সন্ত্রাসীরা সৌদি আরবে বসবাস করে।

সৌদি লেখক ‘মুহাম্মাদ আল-উমার’ এ সম্পর্কে বলেছেন : আমাদের পূর্বপুরুষরা এ ধরণের কাজ করেননি...।

অপর এক লেখক ‘আব্দুল আযিয আল-যাহরানী’ আল-দুরাইহিমের উদ্দেশ্যে লিখেছেন : ‘রহমতের নবীও (স.) ইহুদীদের নারী ও শিশুদেরকে হত্যা করতেন না!’

দৈনিক আল-ওয়াতানের কলামিস্ট হালিমা মুজাফফার, আল-দুরাইহিমের উপযুক্ত শাস্তি প্রদান এবং তার বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের জন্য সৌদি কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

দৈনিক আল-রিয়াদের কলামিস্ট ‘ইউসুফ আবুল খাইল’, দুরাইহিমকে এভাবে পরিচয় করিয়েছেন : ‘এ ধরণের ভয়ংকর মন্তব্যকারীর অন্তর হতে মহান আল্লাহ শুধুমাত্র ঈমানই তুলে নেননি বরং এ পৃথিবীতে পশু ও বৃক্ষরাজী যে সকল রহমত প্রাপ্ত হয় তাও তার উপর হতে তুলে নিয়েছেন’।

উল্লেখ্য, ‘সায়াদ আল-দুরাইহিম’ কিছুদিন পূর্বেও দাবী করেছিলেন যে, ‘বেহেশতে প্রবেশের একমাত্র অধিকারী হচ্ছে নাজদ অঞ্চলের ওলামাগণ’।

সৌদি আরবের এ ধর্ম প্রচারক ও শরিয়ত বিষয়ক শিক্ষক আরো বলেছেন : ‘আমি নাজদের বাসিন্দাদের নিষ্পাপ বলে দাবী করছি না; সুন্নি মাযহাব এবং পরিত্রাণ প্রাপ্ত ফির্কার অনুসারীরা যেস্থানেই থাকুক না কেন তাদের অধিকাংশই এ ভূখণ্ডে অবস্থানরত!!!

সামাজিক ওয়েব সাইটসমূহে সক্রিয় অনেক সৌদি নাগরিক আল-দুরাইহিমের এমন মন্তব্যের নিন্দা জানিয়ে তার অবস্থানকে বর্ণবাদী বলে আখ্যায়িত করেছেন।

360
0
0% (نفر 0)
 
نظر شما در مورد این مطلب ؟
 
امتیاز شما به این مطلب ؟
اشتراک گذاری در شبکه های اجتماعی:

latest article

মুফতি হান্নানসহ ৩ জঙ্গির ফাঁসি বহাল ...
ইসলাম গ্রহণ করলেন বিশ্বখ্যাত গায়িকা ...
২০১৯ সালের প্রথম শহীদ (ছবি)
আইএসআইএল যুক্তরাষ্ট্রের সৃষ্টি
দেশ ছাড়তে গিয়ে বিমানবন্দরে ব্লগার ...
ভারতীয় বিমানবাহিনীর যুদ্ধবিমান ...
প্রাইভেট ভার্সিটির মান ও ডিগ্রি ...
অনুমতি ছাড়া জাকির নায়েকের সংস্থা ...
ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন ইতালির এক ...
অবশেষে গ্রিসের রাজধানীতে মসজিদ ...

 
user comment