বাঙ্গালী
Monday 10th of August 2020
  1792
  0
  0

শেইখ মুফিদ (রহ.)-এর ভুল ফতওয়া এবং ইমামে যামানা (আ. ফা.)-এর সহযোগিতা

রাম্য এক ব্যক্তি প্রখ্যাত আলেম শেইখ মুফিদ (রহ.)-এর নিকট এসে জিজ্ঞেস করলো: এক গর্ভবতী নারী মৃত্যুবরণ করেছে, কিন্তু তার গর্ভের সন্তান এখনও জীবিত, এ অবস্থায় তার গর্ভ হতে সন্তান বের করে তাকে দাফন করব নাকি ঐ অবস্থাতেই তাকে দাফন করব? উত্তরে শেইখ মুফিদ বললেন: বাচ্চাসহ তাকে দাফন করে দাও
শেইখ মুফিদ (রহ.)-এর ভুল ফতওয়া এবং ইমামে যামানা (আ. ফা.)-এর সহযোগিতা

রাম্য এক ব্যক্তি প্রখ্যাত আলেম শেইখ মুফিদ (রহ.)-এর নিকট এসে জিজ্ঞেস করলো: এক গর্ভবতী নারী মৃত্যুবরণ করেছে, কিন্তু তার গর্ভের সন্তান এখনও জীবিত, এ অবস্থায় তার গর্ভ হতে সন্তান বের করে তাকে দাফন করব নাকি ঐ অবস্থাতেই তাকে দাফন করব?

উত্তরে শেইখ মুফিদ বললেন: বাচ্চাসহ তাকে দাফন করে দাও।

গ্রাম্য ঐ লোকটি ফেরার পথে দেখতে পেল যে, এক ঘোড় সওয়ার তার দিকে আসছে। ঘোড় সওয়ার তার কাছে এসে বললো: হে, শেইখ বলেছেন যে, ঐ নারীর গর্ভ হতে বাচ্চা বের করে তাকে দাফন কর। আর লোকটি তেমনি করলো।

কিছুদিন পর এ ঘটনাটি সম্পর্কে শেইখ মুফিদ (রহ.) অবগত হয়ে বললেন: আমি তো কাউকে পাঠাইনি এবং এটা স্পষ্ট যে, তিনি ইমামে যামানা (আ. ফা.) ব্যতীত আর কেউ নন। আমি যেহেতু শরয়ী আহকামে ফতওয়া প্রদানে ভুল করেছি, সুতরাং আর কখনই ফতওয়া দেব না। অতঃপর তিনি নিজ বাড়ীতে ফিরে এসে দরজা বন্ধ করে দিলেন এবং তার কাছে প্রশ্ন জিজ্ঞেস করতে আসা প্রশ্নকারীদের উত্তর দেয়া হতে বিরত রইলেন।

অতঃপর হযরত ইমামে যামানা (আ. ফা.)-এর পক্ষ হতে একটি তওকী (পত্র বিশেষ) শেইখের হাতে এসে পৌঁছুল। তাতে লেখা ছিল : ‘আপনার দায়িত্ব ফতওয়া প্রদান করা, আর আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে আপনাকে সাহায্য করা এবং ভুল-ভ্রান্তি হতে বাঁচিয়ে রাখা। এ নির্দেশের পর শেইখ মুফিদ পূনরায় ফতওয়া প্রদান করা শুরু করলেন।

বর্ণিত হয়েছে যে, দীর্ঘ ৩০ বছরে ৩০টি তওকী হযরত ইমামে যামানা (আ. ফা.-এর পক্ষ হতে শেইখ মুফিদের উদ্দেশ্যে প্রদান করা হয়েছিল। ঐ সকল তওকী’র শিরোনামে লেখা ছিল : সম্মানিত ও দৃঢ়চিত্তের অধিকারী ভাই শেইখ মুফিদের প্রতি।

উল্লেখ্য, প্রখ্যাত কালাম ও ঐতিহাসিক শেইখ মুফিদ (রহ.) ৩৩৬ (অন্য বর্ণনায় ৩৩৮) হিজরীতে বাগদাদ হতে ৮ ফারসাখ দূরে অবস্থিত জীল নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন এবং ৪১৩ হিজরীর রমজান মাসে ইন্তেকাল করেন।

সূত্র: মুহাম্মাদ তাক্বী সারফী রচিত, ‘দাস্তানহায়ী আয যিন্দেগীয়ে ওলামা’, বারগুযিদেহ প্রকাশনী হতে


source : abna24
  1792
  0
  0
امتیاز شما به این مطلب ؟

latest article

    আল্লাহকে কি চর্মচক্ষু দ্বারা দেখা ...
    শবে বরাত
    শিয়াদের মৌলিক বিশ্বাস (পর্ব-৪):ইমামত
    শবে বরাত
    ইমাম মাহ্দী (আ.)-এর বিশ্বজনীন শাসনের ...
    ১৫ই শাবান: শেকল ভাঙার মহানায়কের ...
    আহলে সুন্নাতের বর্ণিত হাদীস ও ...
    ইমাম মাহদী (আ.)এর আগমন একটি অকাট্য বিষয়
    ১৫ই শাবান রাত ও দিনের আমল
    ইমাম মাহদী(আ.) কি মুসলমানদের খারাপ কাজ ...

 
user comment