বাঙ্গালী
Monday 19th of February 2018
code: 81211

হাসনাইন (ইমাম হাসান ও ইমাম হোসাইন) (আ.) এর প্রতি ভালবাসা



হযরত জাবের আনাস বিন মালেককে বললেন,“একদিন রাসুলে খোদা (সা.) কিছু সাহাবাদের নিয়ে মসজিদে উপবিষ্ট ছিলেন। তখন রাসুলে খোদা (সা.) আমাকে বললেনঃ হে জাবের যাও হাসান ও হোসাইনকে আমার নিকট নিয়ে আস। জাবের বললেনঃ পয়গাম্বার (সা.) ঐ দু’জনকে খুব ভালবাসেন,আমিও গিয়েছিলাম ঐ দু’জনকে আনতে। পথিমধ্যে কখনও একজনকে কখনও অন্যজনকে কোলে করে পয়গাম্বার (সা.) এর নিকট পৌঁছালাম। পয়গাম্বার (সা.) ওদের দু’জনের প্রতি আমার ভালবাসা ও মমতা দেখতে পেয়ে আমাকে জিজ্ঞাসা করলেন হে জাবের! ঐ দু’জনকে তুমি ভালবাস কি?

আমি বললামঃ আমার বাবা ও মা আপনার জন্য উৎসর্গ হোক। কেন ওদেরকে ভালবাসব না? আপনার নিকট তাঁদের মর্যাদা সম্পর্কে আমি অবগত।

অতঃপর পয়গাম্বার ইমাম হাসান ও ইমাম হোসাইন (আ.) এর ফজিলত ও মহত্ত্ব সম্পর্কে বক্তব্য দেন এবং পরিশেষে ইমাম মেহেদী (আ.) এর পবিত্র আগমন ইমাম হোসাইন (আ.) এর বংশ থেকে ঘটবে তা উল্লেখ করেন।

রাসুলে খোদা (সা.) তাঁর অব্যাহত বক্তৃতায় বলেনঃ তাঁদের ফজিলত সম্পর্কে কি তোমাকে বলবো? আমি বললামঃ হ্যাঁ,আমার পিতা ও মাতা আপনার জন্য উৎসর্গ হোক। পয়গাম্বার (সা.) বললেনঃ মহান আল্লাহ তায়ালা আমাকে সৃষ্টি করতে যখন মনস্থ করলেন;আমাকে একটি শুভ্র রঙ্গের শুক্রের আকৃতিতে সৃষ্টি করলেন এবং আমার আদি পিতা আদম (আ.) এর অস্থির মধ্য তার প্রবেশ ঘটালেন;এমনিভাবে আমাকে পবিত্র অস্থি থেকে পবিত্র গর্ভে স্থানান্তরিত করতেন,তার ধারাবাহিকতা হিসেবে হযরত নুহ,হযরত ইব্রাহীম ও হযরত আব্দুল মোতালেব এর নিকট স্থানান্তরিত হল।

কখনও অজ্ঞতার কলুষতা আমার নিকট পৌঁছাইনি সর্বশেষ ঐ শ্বেত শুক্র দুইভাগে বিভক্ত হলো। এক ভাগ আমার বাবা আব্দুল্লাহ ও অন্য ভাগ আমার চাচা আবু তালেবর অভ্যন্তরে প্রবেশ ঘটলো। আব্দুল্লাহ ঐ পবিত্র ও নুরানী শুক্র থেকে আমাকে জন্ম দিয়েছেন। আর আমি হলাম আমার খোদার সর্বশেষ প্রেরিত রাসুল,আর নবুওয়াত আমার ঊপর সমাপ্ত হয়েছে। আর আবু তালেব থেকে আলীর জন্ম হয়। যিনি সর্বশেষ পয়গাম্বরের ওসী বা ঊত্তরসূরী। আমার ও আলীর শুক্রের সংমিশ্রনের মাধ্যমে দু’জন সুন্দর ফুটফুটে সন্তান হাসান ও হোসাইনের আগমন ঘটে। যারা আল্লহর পয়গাম্বারের সর্বশেষ বংশধর আর আল্লাহ তায়ালা আমার বংশধর ঐ দু’জন থেকে অব্যাহত রেখেছে।

অতঃপর পয়গাম্বার (সা.) হোসাইন (আ.) এর দিকে ইঙ্গিত করে বললেনঃ আমার সর্বশেষ উত্তরসূরী যিনি পূর্ণ বিজয়ের মাধ্যমে কাফেরদের সকল শহর জয় করবেন এবং অন্যায় ও অত্যাচারে ভরপূর জমিনকে ন্যায় ও ইনসাফে পরিপূর্ণ করবেন। তিনি হবেন তাঁর বংশ হতে।

আমার এই দু’সন্তান হাসানাইন পাক পবিত্র ও বেহেস্তের যুবকদের সর্দার। সৌভাগ্যবান তারাই যারা এ দুজন ও তাঁদের পিতামাতাদেরকে ভালবাসবে। আর দুর্ভাগ্য তাদের যারা এদুজন ও তাদের পিতা মাতাদের সাথে শত্রুতা করবে।

(সুত্রঃ ভিজেগীহয়ে পয়গাম্বার আযম(সা.) আল খাসায়েসুন নাবুওয়াহ) অনুবাদঃ মোঃ শহীদুল হক)

latest article

  কোরআন ও চিকিৎসা বিজ্ঞান
  বিস্ময়কর কুরআন : গ্যারি মিলার- পর্ব ২
  আল কোরআনের অলৌকিকতা (৫ম পর্ব)
  সূরা ইউসুফ; (৩১তম পর্ব)
  সূরা ইউসুফ; (৩০তম পর্ব)
  আল কোরআনের অলৌকিকতা (৬ষ্ঠ পর্ব)
  সমাজ কল্যাণে আল-কুরআনের ভূমিকা
  হযরত ফাতেমার প্রতি নবী (সা.)-এর স্নেহ ও ...
  হযরত ফাতেমার স্বর্গীয় ব্যক্তিত্ব
  হযরত ফাতেমার দানশীলতা ও বদান্যতা

user comment