বাঙ্গালী
Tuesday 26th of March 2019
  1929
  0
  0

খুলনায় ইসলামি বিপ্লবের ৩৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন

খুলনায় ইসলামি বিপ্লবের ৩৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন
খুলনায় বিশেষ আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে ইসলামি বিপ্লবের ৩৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে।

হলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা –আবনা-: আহলে বাইত (আ.) ফাউন্ডেশন ও ইসলামী শিক্ষা কেন্দ্র খুলনার যৌথ উদ্যোগে ইসলামি বিপ্লবের ৩৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় আঞ্জুমান-এ-পাঞ্জাতানী মসজিদে ওয়ালী আসরে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকাস্থ ইরান দূতাবাসের সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের মাননীয় কালচারাল কাউন্সিলর জনাব সাইয়্যেদ মুসা হোসেইনী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ট্রেজারার, খুলনার কৃতী সন্তান অধ্যাপক মো. মাজহারুল হান্নান এবং বিশিষ্ট সাংবাদিক, আইনজীবি ও খুলনা সিটি ল’কলেজের অধ্যাপক ড. মো. জাকির হোসেন।

আরো উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী শিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষক হুজ্জাতুল ইসলাম মোঃ শাহিদুল হক ও হুজ্জাতুল ইসলাম সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেনসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

অনুষ্ঠানে “ইরানের ইসলামি বিপ্লব ও সাফল্যতা”শীর্ষক প্রবন্ধ পাঠ করেন ইসলামি শিক্ষাকেন্দ্রের শিক্ষক হুজ্জাতুল ইসলাম মোঃ আনিসুর রহমান।

প্রধান অতিথি বলেন, ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরান জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের   দ্বারা পরিচালিত। পূর্ব-পশ্চিমে পরাশক্তির নাগপাশ ছিন্ন করে ইসলামী প্রজাতন্ত্র  বিশ্বের সর্বসাধারণের মাঝে মুক্তি ও স্বাধীনতার অনুপ্রেরণা সৃষ্টি করেছে, অন্যদিকে মুসলিম বিশ্বকে মাযহাব ও ফিরকার বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ মুসলিম উম্মাহ গঠনের পথ দেখিয়েছে। ফিলিস্তিনসহ মুক্তিকামী জনপদের জন্য ইরান একটি আদর্শ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ বিপ্লব শুরু থেকেই অভ্যন্তরীণ ও বহিঃশত্রুর মোকাবেলা করে, এমনকি দীর্ঘকালীন অর্থনৈতিক অবরোধের মধ্যেও জ্ঞান-বিজ্ঞানের উৎকর্ষ সাধন, জনগণের জন্য পানি, বিদ্যুৎ, খাদ্য, স্বাস্থ্যসেবা ওশিক্ষা ইত্যাদি মৌলিক চাহিদা পূরণ করেছে। এর মাঝেই বড় বড় হাইওয়ে, মেট্রোরেল প্রকল্প সমাপ্ত করেছে। এমনকি পরমাণু শক্তিধর দেশের তালিকাভুক্ত হয়েছে। ইরানের ইসলামী বিপ্লবের সবচেয়ে বড় সাফল্য হলো এর নেতৃবৃন্দ ও জনগণের প্রচণ্ড আত্মবিশ্বাস অর্জন। এ আত্মবিশ্বাসের বলেই সম্প্রতি পরমাণু বিষয়ক বিতর্কে ইরান বিশ্বের শক্তিধর ৫+১ জাতির সাথে আত্মসম্মানের সাথে সমঝোতা চুক্তি করতে সমর্থ হয়েছে। এই আত্মবিশ্বাস ও আত্মমর্যাদা রক্ষা করে দেশগঠন ইসলামী বিপ্লবের মহান নেতা ইমাম খোমেনি (রহ.)- এরই শিক্ষা।

সভাপতির ভাষণে ইসলামী শিক্ষা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ হুজ্জাতুল ইসলাম সৈয়দ ইব্রাহীম খলীল রাজাভী বলেন, ইসলামী বিপ্লব আল্লাহ প্রদত্ত একটি বড় নেয়ামত। একে ধ্বংস করবে এমন কোন শক্তি পৃথিবীতে নেই এবং এ বিপ্লব ইনশাল্লাহ ইমামে যামানার (আ.)-এর নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত বিপ্লবের সাথে মিলিত হবে।

অনুষ্ঠান সঞ্চালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন আঞ্জুমান-এ-পাঞ্জাতানীর সাধারণ সম্পাদক জনাব মো: ইকবাল।


source : abna24
  1929
  0
  0
امتیاز شما به این مطلب ؟

latest article

      সিরিয়ায় ১,০০০ সৈন্য মোতায়েন রাখতে চায় ...
      যৌন জিহাদ’ থেকে গর্ভবতী হয়ে ফিরছে ...
      পাকিস্তান সীমান্তের কাছে ট্যাংক ...
      ভারতে যে দাঙ্গা মুসলিম নারীদের ...
      ওয়াহাবীদের গ্রান্ড মুফতি কে? (পর্ব ১)
      সৌদি আরবের গ্রান্ড মুফতি কে? (পর্ব ২)
      ওয়াহাবীদের গ্রান্ড মুফতি কে? (পর্ব ৩)
      গাধা ও কুকুরকে শরিয়ত ভিত্তিক উপায়ে ...
      নাইজেরিয়ায় ইসলাম প্রচার ততপরতায় ...
      যদি আল-মাজেদ জীবিত থাকতেন...

 
user comment