বাঙ্গালী
Tuesday 21st of May 2019
  2791
  0
  0

'ইসরাইল নয়, ইরানকে প্রধান শত্রু ভাবছে আরব সরকারগুলো'

'ইসরাইল নয়, ইরানকে প্রধান শত্রু ভাবছে আরব সরকারগুলো'

১২ মে (রেডিও তেহরান):  বিশিষ্ট মার্কিন সাংবাদিক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক ফরিদ জাকারিয়া বলেছেন, মধ্যপ্রাচ্যের চলমান সংকট ইসরাইলের স্বার্থ রক্ষা করছে। কারণ, ইসরাইলের চারপাশের আরব দেশগুলো এখন ইহুদিবাদী এ রাষ্ট্রটির প্রধান পৃষ্ঠপোষকে পরিণত হয়েছে।
 

সিএনএন টেলিভিশনের উপস্থাপক জাকারিয়া দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টে প্রকাশিত এক নিবন্ধে ওই মন্তব্য করেছেন। তিনি লিখেছেন, 'সব তারকা এখন ইসরাইলের আকাশে জ্বলজ্বল করছে। নেতানিয়াহুর জন্য এটা সুবর্ণ সুযোগ! ইসরাইলের নতুন সরকার গঠিত হয়েছে ইহুদিবাদী সংসদ বা নেসেটে বিবর্ণতম সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে। ফলে নেতানিয়াহু হয়ত আগের চেয়েও সতর্ক হবেন।'


জাকারিয়া আরও লিখেছেন, ইসরাইলের সুযোগগুলোর পক্ষে কথা বললে প্রথম দৃষ্টিতে তা অতিরঞ্জিত বলেই মনে হতে পারে। মধ্যপ্রাচ্য এখন অশান্ত বা নৈরাজ্যময়। যে দেশগুলো এক সময় স্থিতিশীল বা শান্ত ছিল সেগুলো এখন চরমপন্থার শিকার হয়েছে। হিজবুল্লাহ ও হামাস সক্রিয়। এর সঙ্গে যুক্ত করুন ইসরাইল-বিরোধী প্রবণতা বা চেতনা যা সারা বিশ্বেই দিন দিন বাড়ছে। আর এই সবকিছুই এটা তুলে ধরছে যে, ইসরাইল ভয়ানক বিপদের মধ্যে রয়েছে।

 
 
আর এ বিষয়টিকে অজুহাত করেই (ইহুদিবাদী) ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু এনবিসি-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার বিষয়টি পিছিয়ে দেয়ার ইসরাইলি উদ্যোগের পক্ষে সাফাই গেয়েছেন। তিনি বলেছেন, 'যেসব পরিবর্তন ঘটে গেছে তা একটি বাস্তবতা।'


জাকারিয়া আরও লিখেছেন, 'হ্যাঁ, বাস্তবতাগুলো বদলে গেছে। তবে যদি আমরা গণমাধ্যমগুলোর শিরোনামের চেয়ে নিজেদের দৃষ্টিকে বেশি প্রখর  করি তাহলে দেখবো, সব কিছুই বিস্ময়করভাবে ইসরাইলের অনুকূলে পাল্টে গেছে। (ইহুদিবাদী) ইসরাইলের বিরুদ্ধে আরবদের হুমকি বিলীন হয়ে গেছে। ইসরাইল তার অস্তিত্ব সৃষ্টির প্রথম থেকেই সব সময় আরব সশস্ত্র বাহিনীগুলোর মাধ্যমে বিলুপ্তির হুমকির মধ্যে ছিল। কিন্তু এই হুমকি মাথায় নিয়েই ইসরাইল তা মোকাবেলার জন্য পরিকল্পনা নিয়েছে। এ অবস্থায় চলমান নানা পরিবর্তনের ফলে আরব দেশগুলো ইসরাইলের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর পরিবর্তে এখন ইসরাইলের প্রধান শত্রু ইরানের বিরুদ্ধেই অবস্থান নিয়েছে!
 

জাকারিয়া আরও লিখেছেন, মিশরে জেনারেল সিসি সরকার ক্ষমতা পাওয়ায় এখন দেশটির ইতিহাসে হামাসের বিরুদ্ধে কঠোরতম প্রেসিডেন্টকে উপভোগ করছে ইসরাইল!
 

সিএনএন-এর উপস্থাপক চলমান পরিবর্তনগুলোকে গভীরভাবে বোঝানোর জন্য আরও লিখেছেন, 'আরব সরকারগুলো একটি যৌথ বাহিনী গঠনের চিন্তা করছে বলে খবর এসেছে। এর আগে ১৯৪৭ ও ১৯৬৭ সালেও অভিন্ন আরব বাহিনী গঠনের কথা উঠেছিল। সে সময় লক্ষ্য ছিল ইসরাইলকে বিশ্বের মানচিত্র থেকে মুছে ফেলা। কিন্তু ইসরাইলের হারেৎজ পত্রিকার এক বিশ্লেষকের মতে আরবদের এ নতুন পরিকল্পনা ইসরাইলকে উদ্বিগ্ন তো করছেই না, বরং ইসরাইলকে আনন্দে আত্মহারা করছে!'


তার এ বক্তব্যের পাশাপাশি ইসরাইলের একজন শীর্ষস্থানীয় পুরোহিতের মন্তব্যও তুলে ধরা যায় যিনি সম্প্রতি বলেছেন, আইএসআইএল ইসরাইলের জন্য বিধাতার পাঠানো আশীর্বাদ। হ্যাঁ, এইসব তাকিফিরি-ওয়াহাবি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ইয়েমেনের আনসারুল্লাহসহ এ অঞ্চলের বিপ্লবী মুসলমানদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে ইসরাইলের জন্য সত্যিই মহা-আনন্দের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।#
 
 


source : irib.ir
  2791
  0
  0
امتیاز شما به این مطلب ؟

latest article

      ইসরাইলি বাহিনীর হামলায় হামাসের ২ ...
      'গাজায় ইসরাইলি বিমান হামলার শরিক ...
      ইয়েমেনে শিশুদের ওপর হামলায় মার্কিন ...
      আগ্রাসীদের রাজধানী আর নিরাপদ থাকবে ...
      গ্রিসে ইসলামের প্রসার বাড়ছে
      ঘুড়ি ও বেলুনে অসহায় ইসরাইলের নয়া ...
      সৌদি জোটের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ
      ইয়েমেনিদের হামলায় ৫৮ সৌদি সেনা নিহত
      শুক্রবার দেখা যাবে শাওয়াল মাসের নতুন ...
      ইসরাইল-বিরোধী সংগ্রাম জোরদারের শপথে ...

 
user comment