বাঙ্গালী
Tuesday 19th of November 2019
  460
  0
  0

মাশহাদ যেয়ারত করতে আসা ৪ বছরের বোবা ও বধির কন্যার আরোগ্য লাভ

ইরানের কুর্দিস্তান প্রদেশের সিরিশ আবাদ শহর হতে এদেশের পবিত্র মাশহাদ শহরে অবস্থিত ইমাম আলী ইবনে মুসা আর রেজা (আ.) এর মাযার যেয়ারত করতে আসা একটি কাফেলার ৪ বছর বয়স্ক জন্মগত বধির ও বোবা এক মেয়ে আরোগ্য লাভ করেছে।
আহলে বাইত (আ.) বার্তা সংস্থা আবনার রিপোর্ট : কারভে জেলার অন্তর্ভূক্ত সিরিশ আবাদ শহরের জনগণ গত শনিবার বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দাহেয়ে কারামাত (কারামাতের দশক)-এ ৪ বছর বয়স্ক ঐ মেয়ের আরোগ্য লাভ উপলক্ষ্যে মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের দরবারে কৃতজ্ঞতা স্বীকার করতে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। জন্মগত বোবা ও বধির ঐ মেয়েটি মহানবী (স.) এর বংশধারার অষ্টম ইমাম হযরত আলী ইবনে মুসা আল রেজা (আ.) এর মাযার যেয়ারতে এসে মহান আল্লাহর এ প্রিয় বান্দার ওসিলায় আরোগ্য লাভ করে।
উক্ত অনুষ্ঠানের শুরুতে আরোগ্য প্রাপ্ত ঐ মেয়ের পিতা মাহদী ইবরাহিমী বলেন : আমার কন্যা জন্মগতভাবে শ্রবন ও বাক শক্তির নেয়ামত হতে বঞ্চিত ছিল। এ চার বছর বিভিন্ন চিকিত্সকের শরণাপন্ন হলেও আমরা কোন ফল পাই নি। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরিক্ষার পর বিশেষজ্ঞদের মতামতে আমরা নিরাশ হই। কিন্তু মহান আল্লাহর রহমতে ইমাম রেজা (আ.) এর ওসিলায় আমাদের ৪ বছরের কন্যা ফাতেমা আরোগ্য লাভ করেছে এবং বর্তমানে সে শুনতে ও কথা বলতে পারে।
মাহদী ইব্রাহিমী, ধর্মীয় শিক্ষা-দীক্ষার প্রসার এবং পবিত্র ইমামগণ (আ.) এর যেয়ারতের সুযোগ সৃষ্টি করে দেয়ার জন্য কুর্দিস্তানের সিপাহে বাইতূল মোকাদ্দাসের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন : মহান আল্লাহর দরবারে আমরা কৃতজ্ঞ যে, বিপ্লবী রক্ষী বাহিনী'র মত একটি ইসলামি ও বিপ্লবী সংগঠন আমার পরিবারের যেয়ারতের ব্যবস্থা করেছে। এ যেয়ারতের বরকত আমার কন্যার জন্য আরোগ্য বয়ে এনেছে এবং আমি আমার জীবনের শেষ মুহূর্ত অবধি ইসলামি বিপ্লবের এ সংগঠনের সাংস্কৃতিক ও আকিদাগত কর্মকাণ্ডের কথা ভুলব না।
কুর্দিস্তান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে বেলায়েতে ফকীহ'র প্রতিনিধি উক্ত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে ইমাম রেজা (আ.) এর কারামাত সম্পর্কে বলেন : ইমাম (আ.) গণ ও আল্লাহর আওলিয়াদের কর্তৃক (মহান আল্লাহর অনুমতিক্রমে) শেফা দান করার প্রতি বিশ্বাস স্থাপন প্রতিটি ইসলামি মাযহাবে অন্যতম আকিদা। ইতিহাসের বিভিন্ন প্রেক্ষাপটে এর বাস্তব প্রমাণ লক্ষ করেছে মুসলমানরা এবং মহান আল্লাহর অনুগ্রহে এ বরকতকে ইরানের বিভিন্ন মাযহাবের অনুসারীরা সর্বদাই অনুধাবন করতে পেরেছে।
হুজ্জাতুল ইসলাম শীর মুহাম্মাদি বলেন : ইসলামি ইরানে ইমাম রেজা (আ.) এর মাজার, ইরানি মুসলমান ও কুর্দিস্তান বাসীদের মাঝে বিশেষ স্থানের অধিকারী। কুর্দিস্তানের জনগণও এ ইমামসহ অন্যান ইমামদের প্রতি বিশেষ সম্মান প্রদর্শন করে এবং তাদের যেয়ারতে জন্য ছুটে যায়।
তিনি বলেন : যদিও এ গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাটি চিকিত্সা শাস্ত্রের দৃষ্টিতে অবাস্তব বলে মনে হতে পারে। কিন্তু আমাদের ধর্মীয় ও ইসলামি শিক্ষা এ বিষয়টির সত্যায়ন করে এবং দ্রুত এ আরোগ্যকে নিষ্পাপ ইমামগণ ও পরিপূর্ণ মানবদের বরকত বলে জ্ঞান করা হয়।
উল্লেখ্য, এ শহরের মাহদিয়্যাহ'তে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে আরোগ্য প্রাপ্ত ৪ বছরের মেয়ে ফাতেমা ও তার পরিবারের সাথে সিরিশ আবাদ বাসী উপস্থিত হয়ে মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের দরবারের শোকরানার সিজদা আদায় করেন এবং সকল মুসলমানদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন।

  460
  0
  0
امتیاز شما به این مطلب ؟

latest article

    ইসরাইলি বাহিনীর হামলায় হামাসের ২ ...
    'গাজায় ইসরাইলি বিমান হামলার শরিক ...
    ইয়েমেনে শিশুদের ওপর হামলায় মার্কিন ...
    আগ্রাসীদের রাজধানী আর নিরাপদ থাকবে ...
    গ্রিসে ইসলামের প্রসার বাড়ছে
    ঘুড়ি ও বেলুনে অসহায় ইসরাইলের নয়া ...
    সৌদি জোটের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ
    ইয়েমেনিদের হামলায় ৫৮ সৌদি সেনা নিহত
    শুক্রবার দেখা যাবে শাওয়াল মাসের নতুন ...
    ইসরাইল-বিরোধী সংগ্রাম জোরদারের শপথে ...

 
user comment